Tuesday, March 9, 2021
- Advertisment-
Home আন্তর্জাতিক অন্তত ১‌২ লাখ নতুন অভিবাসী নিতে চায় কানাডা

অন্তত ১‌২ লাখ নতুন অভিবাসী নিতে চায় কানাডা

আগামী তিন বছরের মধ্যে নতুন ১২ লাখের বেশি অভিবাসীকে নিজ দেশে নেওয়ার পরিকল্পনা করছে কানাডা।

অনলাইন ডেস্ক: রাজধানী অটোয়ায় সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে কানাডার অভিবাসন মন্ত্রী মার্কো মেন্দিসিনো বলেন, সরকারের লক্ষ্য হলো ২০২১ সালে চার লাখ এক হাজার নতুন স্থায়ী বাসিন্দা গ্রহণ, ২০২২ সালে আরও চার লাখ ১১ হাজার এবং ২০২৩ সালে আরও চার লাখ ২১ হাজার অভিবাসীকে গ্রহণ করা।

মার্কো মেন্দিসিনো বলেন, কানাডার আরও কর্মী দরকার আর তা পূরণের উপায় হলো অভিবাসন। তিনি বলেন, ‘মহামারির আগে অভিবাসনের মাধ্যমে অর্থনীতিকে এগিয়ে নেওয়ার লক্ষ্য ছিলো উচ্চাকাঙ্ক্ষা। এখন এটি সাধারণভাবেই গুরুত্বপূর্ণ।‘

ইউনিভার্সিটি অব ক্যালগারি স্কুল অব পাবলিক পলিসির অভিবাসন নীতি বিষয়ক গবেষক এবং একজন শরণার্থী রবার্ট ফ্যালকোনার শুক্রবার এক টুইট বার্তায় লিখেছেন, সরকার যদি লক্ষ্য পূরণ করতে পারে তাহলে ১৯১১ সালের পর আগামী তিন বছরে অভিবাসী নেওয়ার রেকর্ড তৈরি হবে।

পরিকল্পনার বিস্তারিত তুলে ধরে জারি করা নোটিশে অটোয়া বলেছে, ২০২১ সালে অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ডে যুক্ত হতে সক্ষম নতুন ২ লাখ ৩২ হাজার পাঁচশ’ অভিবাসীকে স্বাগত জানানো হবে, এর পাশাপাশি বর্তমানে কানাডায় অবস্থানরতদের পরিবারের সদস্য নেওয়া হবে  এক লাখ ৩ হাজার পাঁচশ’ জন। শরণার্থী এবং অন্যান্য সুরক্ষিত ব্যক্তি নেওয়া হবে ৫৯ হাজার পাঁচশ’ জন। এছাড়া মানবিক কারণে নেওয়া হবে আরও পাঁচ হাজার পাঁচশ’ জনকে।

দীর্ঘ দিন থেকেই কানাডার অভিবাসন সিস্টেমকে মডেল হিসেবে দেখা হয়ে থাকে। ঐতিহাসিকভাবেই দেশটি দক্ষ কর্মীদের পাশাপাশি শরণার্থী এবং ইতোমধ্যে সেদেশে থাকা মানুষদের পরিবারের আগ্রহী সদস্যদের গ্রহণ করে থাকে।

কোভিড-১৯ মহামারির কারণে এই বছরের মার্চে বেশিরভাগ অভিবাসীর জন্যই নিজেদের সীমান্ত বন্ধ করে দেয় কানাডা। আগস্ট জুড়ে দেশটি নতুন এক লাখ ২৮ হাজার ৪২৫ জন নতুন আগতকে স্বাগত জানিয়েছে। তবে ২০২০ সালের জন্য নির্ধারিত লক্ষ্য তিন লাখ ৪১ হাজার থেকে স্বাগত জানানোর পরিমাণ অর্ধেকেরও কম। এছাড়া করোনা মহামারির কারণে বৈষম্য বাড়ার পাশাপাশি কানাডার অভিবাসন সিস্টেমের দীর্ঘ দিনের সমস্যা যাচাই বাড়তে থাকাও প্রকট হয়েছে।

দেশটিতে বহু আশ্রয়প্রার্থী এবং শরণার্থী দুর্বল কর্মক্ষেত্রের মুখোমুখি হয়। স্বাস্থ্যসেবা, খাবার প্রক্রিয়াজাতকরণ এবং খামারের মতো কানাডার কয়েকটি মূল শিল্প এমন কর্মীদের ওপর নির্ভর করে যাদের সতর্কতামূলক অভিবাসন মর্যাদা তাদের নিপীড়নের ঝুঁকিতে ফেলে।

এসব কর্মীদের জন্য স্থায়ী অভিবাসন মর্যাদার দাবিতে গত কয়েক মাস ধরেই দেশটিতে আন্দোলন জোরালো হয়েছে। এসব কর্মীদের অনেকেই কোভিড-১৯ সংক্রমণের ঝুঁকি জনিত পরিস্থিতিতে কাজ করে থাকে। কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরার প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য জানা গেছে। 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

সর্বশেষ সংবাদ

হাজার হাজার বাইডেন সমর্থকদের উচ্ছ্বাস হোয়াইট হাউজের সামনে

যুক্তরাষ্ট্রে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের ফল প্রকাশের অপেক্ষায় ছিল বিশ্ব। দীর্ঘ সেই অপেক্ষার অবসান হওয়ার পর উৎসব শুরু হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রে। ওয়াশিংটন ডিসি, পেনসিলভেনিয়া, নিউ...

আর নিউজ করব না: নির্যাতিত সাংবাদিকের উপলব্ধি

সাংবাদিকেরা যাতে প্রভাবশালীদের অনিয়ম আর দুর্নীতির বিরুদ্ধে কোনো খবর প্রকাশ না করে সেজন্য অপহরণ ও নির্যাতন করে ভয় দেখানো হচ্ছে৷ শুধু...

লকডাউনের সম্ভবনা নেই, সতর্ক থাকার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

দেশে আবারও লকডাউন দেওয়ার চিন্তা আপাতত সরকারের নেই, তবে সবাইকে সতর্ক থাকার জন্য প্রধানমন্ত্রী নির্দেশ দিয়েছেন বলে জানিয়েছেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার...

২৪ ঘণ্টার মধ্যে ফ্রান্স দূতাবাস বন্ধের দাবি হেফাজতের

ডেস্ক রিপোর্ট২৪ ঘণ্টার মধ্যে বাংলাদেশে ফ্রান্সের দূতাবাস বন্ধের দাবি জানিয়েছে হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশ। একইসঙ্গে ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁকে ক্ষমা চাইতে হবে বলেও দাবি...

শীর্ষ খবর

কোভিড -১৯: চার সপ্তাহ ইংল্যান্ডে লকডাউন ঘোষণা

যুক্তরাজ্য এক মিলিয়ন কোভিড -১৯ সনাক্ত হওয়ায় প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন ইংল্যান্ডে দ্বিতীয় জাতীয় লকডাউন ঘোষণা করেছেন।

মহানবীকে (সা.) অবমাননা; ইতালিতে প্রকাশ্যে আজান দিয়ে প্রতিবাদ

অনলাইন ডেস্ক: মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সা.) এর অবমাননার ঘটনায় ক্রমেই চাপ বাড়ছে ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁ সরকারের ওপর। দেশে দেশে বয়কটের...

চিকিৎসকের ঘর থেকে গৃহপরিচারিকার লাশ উদ্ধার

সিলেটের জালালাবাদ রাগীব-রাবেয়া মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের গাইনি বিভাগের প্রধান ডাক্তার জামিলা খাতুনের বাসা থেকে কিশোরী গৃহপরিচারিকা জান্নাত আক্তার লিনার লাশ উদ্ধার...

মুসলমানদের হাড়, চিনি এবং সাবান তৈরিতে ব্যবহার করেছিল ফ্রান্স: আল জাজিরা

আলজেরিয়ার এক সরকারি কর্মকর্তা জানিয়েছেন, উপনিবেশিক আমলে আলজেরিয়ার মুসলমানদের হাড়, চিনি এবং সাবান তৈরিতে ব্যবহার করেছিল ফ্রান্স। আলজেরিয়ার প্রেসিডেন্টের একজন ইতিহাসবিষয়ক উপদেষ্টা আবদেল...